বুধবার, ৩রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ১৮ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ || ২০শে রজব, ১৪৪২ হিজরি

বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সম্পাদক পদপ্রার্থী এডভোকেট জুয়েল

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সম্পাদক পদপ্রার্থী এডভোকেট জুয়েল

নিজস্ব প্রতিবেদক

এডভোকেট মো. আবদুল আলীম মিয়া জুয়েল আসন্ন ১০ ও ১১ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির কার্যকরী কমিটির ২০২১-২০২২ সালের নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ থেকে সম্পাদক পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনিত হয়েছেন।

সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার শেখপাড়া গ্রামের কৃতি সন্তান জনাব মো আবদুল আলীম মিয়া জুয়েল উল্লাপাড়ার সলপ হাইস্কুল থেকে এস. এস. সি, উল্লাপাড়া আকবর আলী কলেজ থেকে এইচ. এস.সি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৬ সালে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন । এরপর ধানমন্ডি ল’ কলেজ থেকে এলএল. বি ডিগ্রি অর্জন করে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল থেকে আইনপেশা পরিচালনার জন্য অনুমতি প্রাপ্ত হয়ে ১৯৯০ সালে ঢাকা আইনজীবী সমিতির সদস্য হন।

ঢাকা আইনজীবী সমিতিতে আইনজীবীদের অভিভাবকতুল্য বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ৯ বারের নির্বাচিত সদস্য শ্রদ্ধেয় সৈয়দ রেজাউর রহমানের সাথে আইনপেশা শুরু করেন।

সেখানে স্যারের সাথে ফৌজদারী বিষয়ে এবং আইনজীবীদের আরেক অভিভাবক দেওয়ানী আইনে স্বনামধন্য আইনজীবী ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি মরহুম সরদার মো. সুরুজ্জামান স্যারের সাথে থেকে দেওয়ানী বিষয়ে দীক্ষা অর্জন করেন।

 

বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সম্পাদক পদপ্রার্থী এডভোকেট জুয়েল
বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সম্পাদক পদপ্রার্থী এডভোকেট জুয়েল

 

এরপর তিনি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনে আইনপেশা পরিচালনার অনুমতি প্রাপ্ত হয়ে বাংলাদেশের সাবেক সফল অ্যাটর্নি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি মরহুম এডভোকেট মাহবুবে আলম স্যারের সাথে আইনপেশা শুরু করেন।

দীর্ঘসময় স্যারের সাথে থেকে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে মিথ্যামামলাসহ বি. এন. পি জামায়াত জোটের দ্বারা আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা গুলো পরিচালনায় সহযোগিতা করেন।

তিনি কলেজ জীবন থেকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সক্রিয় ভাবে কাজ করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মহসিন হলে ছাত্রলীগের সদস্য হিসেবে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। এর কারণে তিনি তখন কারাবরণও করেন।

আইনপেশায় এসে আইনজীবীদের অবিস্মরণীয় নেত্রী মরহুমা এডভোকেট সাহারা খাতুন এর সাথে আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে সকল আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন।

বর্তমানে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আইন উপকমিটির সদস্য, সম্মিলিত পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, উল্লাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন।

নিরলস ভাবে দীর্ঘ সময় সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশন, ঢাকা বার এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনে কাজ করে যাচ্ছেন। গত বছর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সমন্বয় পরিষদ প্যানেলের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বিয়ে করেছেন ঢাকার মিরপুরে। ভাবি সাকিনা খাতুন তার রাজনীতিতে অনুপ্রেরণা যুগিয়ে যাচ্ছেন।তিনি দুই পুত্র সন্তানের জনক। দুই পুত্রই মিরপুর স্কলাস্টিকা স্কুলে অধ্যয়নরত। তারা দুই ভাই, বড় ভাই এডভোকেট আবদুল আউয়াল সজল ভাইও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ও ঢাকা আইনজীবী সমিতির একজন নিয়মিত সদস্য।

Responses

লেখক পরিচিতি