বৃহস্পতিবার, ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি

লিবিয়ায় মানবপাচার : আপিলে আটকে গেল ৪ আসামির জামিন: আপিল বিভাগ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
‘আমার ভাষা’ সফটওয়্যারে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের ৫টি রায়ের অনুবাদ

ডেস্ক রিপোর্ট

লিবিয়ার মানবপাচার ও পাচারের শিকার ২৬ বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় ঢাকায় করা একটি মামলায় দুই আসামির জামিনের রায় বাতিল এবং অপর দুই আসামির জামিন স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আদালতের আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ আসামিদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মুনসুরুল হক চৌধুরী ও ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

গত ২৮ মে লিবিয়ার মিজদাহ শহরে ইউরোপে অভিবাসনপ্রত্যাশী ২৬ বাংলাদেশি মানবপাচারকারীদের হাতে নিহত হন। একই ঘটনায় আহত হন আরও ১১ বাংলাদেশি। ওই ঘটনা এরই মাঝে দেশ-বিদেশে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি করে।

BD Law Academy
বিজ্ঞাপন

এই ঘটনায় ২ জুন রাতে রাজধানীর পল্টন থানায় মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে এবং হত্যার অভিযোগে মামলাটি করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। এই মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি ছিলেন ফ্লাইওভার ট্যুরস অ্যান্ড ট্র্যাভেলস লিমিটেডের মালিক দুই ভাই শেখ মো. মাহবুবুর রহমান ও শেখ সাহিদুর রহমান।

পরে শেখ মাহবুব ও শেখ সাহিদুর হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন। হাইকোর্ট তাদের আবেদনে রুল জারি করেন। সেই রুলের শুনানি নিয়ে তাদের জামিন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট।

এদিকে অজ্ঞাত আসামি হিসেবে এ মামলায় আটক হন কাউসার মুন্সী ও মাহবুব মুন্সী নামে দুইজন। কাউসার মুন্সী ও মাহবুব মুন্সীকে জামিন দিয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

পরে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করে। আপিল বিভাগের চেম্বারজজ আদালত তাদের জামিনাদেশ স্থগিত করেন। এর ধারাবাহিকতায় আবেদনগুলো প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে আসে।

রোববার শুনানি শেষে আপিল বিভাগ শেখ মাহবুব ও শেখ সাহিদুরকে জামিন দিয়ে হাইকোর্টের দেয়া রায় বাতিল করেছেন। আর কাউসার মুন্সী ও মাহবুব মুন্সীর জামিনাদেশ স্থগিত করেছেন।

Responses

লেখক পরিচিতি