মঙ্গলবার , ২৫ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত
বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে বাংলাদেশের উন্নতি

বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে বাংলাদেশের উন্নতি

জানুয়ারি ১২, ২০১৯

বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে বাংলাদেশের উন্নতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০১৮ সালের বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে বিশ্বের ১৬৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ২৫তম। এর আগের বছর এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ২১তম। অর্থাৎ বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে এবার বাংলাদেশের চার ধাপ উন্নতি হয়েছে। অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট ফর ইকনোমিক অ্যান্ড পিসের- আইইপি একটি গবেষণার প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। গত চার বছর ধরে এ সূচক প্রকাশ করে আসছে সংস্থাটি।

প্রকাশিত সূচক অনুযায়ী, এবার দক্ষিণ এশিয়ার ৪ দেশ- বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল ও শ্রীলংকায় সন্ত্রাসী হামলা কমেছে এবং তারা নিরাপত্তায় উন্নতি দেখিয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাসে আক্রান্ত ১০ দেশের মধ্যে তিনটিই দক্ষিণ এশিয়ার। এগুলো হচ্ছে আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও ভারত। এ কারণে জিটিআই স্কোরে দক্ষিণ এশিয়ার অবনতি হয়েছে।

সার্বিকভাবে দক্ষিণ এশিয়ার অবস্থা গতবারের চেয়ে খারাপ হলেও বাংলাদেশের উন্নতি হয়েছে। বাংলাদেশ ছাড়াও এই সূচকে উন্নতি হয়েছে নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কারও। আর
ডিসেম্বরে প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে দেখা যায়, ৫ দশমিক ৬৯৭ পয়েন্ট নিয়েই চার ধাপ উন্নতি ঘটেছে বাংলাদেশের। তবে, সাম্প্রতিক সময়ের বড় সন্ত্রাসী ঘটনা হিসেবে ২০১৬ সালে ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান ক্যাফেতে জঙ্গি হামলায় ২৮ জনকে হত্যার ঘটনাটি উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

‘গ্লোবাল টেররিজম ইনডেক্স-২০১৮’-এ ৯ দশমিক ৭৪৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় এক নম্বরে আছে ইরাক, অর্থাৎ বিশ্বে এ মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাসপ্রবণতা রয়েছে এ দেশটি।

তালিকায় অবনতির দিকে গেছে যুক্তরাষ্ট্র এবং মিয়ানমারও। যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছে ২০ নম্বর এবং মিয়ানমারের অবস্থান ২৪ এ। এদিকে, সন্ত্রাসপ্রবণ দেশের তালিকায় শূন্য পয়েন্ট নিয়ে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে ব্রাজিল, সিঙ্গাপুর, কিউবাসহ ২৬টি দেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.