বুধবার , ১৩ নভেম্বর ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত
ঢাবির প্রশ্নফাঁসে ৮৭ শিক্ষার্থীসহ ১২৫ জনের বিরুদ্ধে সিআইডির চার্জশিট

ঢাবির প্রশ্নফাঁসে ৮৭ শিক্ষার্থীসহ ১২৫ জনের বিরুদ্ধে সিআইডির চার্জশিট

মে ৩০, ২০১৯

ঢাবি প্রতিনিধি: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় বহুল আলোচিত প্রশ্নফাঁস মামলায় ঢাবির ৮৭ শিক্ষার্থীসহ ১২৫ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট প্রস্তুত করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। আরও ৭৯ জনের তথ্য যাচাইয়ের কাজ চলছে।

আজ বৃহস্পতিবার মালিবাগের সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিআইডি প্রধান মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) শাহ আলম, ইমতিয়াজ আহমেদ এবং বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম।

মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে গত দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে দেশের সর্ববৃহৎ প্রশ্নফাঁস ও ডিজিটাল জালিয়াত চক্রকে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয় অর্গানাইজড ক্রাইম ইউনিটের বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি চৌকস দল। গ্রেফতার হয় মূলহোতাসহ মোট ৪৭ জন। এদের মধ্যে ৪৬ জনই আদালতে অপরাধ স্বীকার করে জবানবন্দী দিয়েছেন।

তিনি জানান, মূলত দুইভাবে জালিয়াতি হয়। একটি চক্র প্রেস থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁস করে। অন্যটি পরীক্ষা শুরুর কয়েক মিনিট আগে কেন্দ্র থেকে প্রশ্নপত্র নিয়ে দ্রুত তা সমাধান করে ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে পরীক্ষার্থীকে সরবরাহ করে।

তিনি আরও জানান, প্রেস থেকে প্রশ্নফাঁসকারী পুরো চক্র চিহ্নিত হলেও ডিজিটাল ডিভাইস চক্রটিকে চিহ্নিত করতে বেগ পেতে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত ডিজিটাল জালিয়াত চক্রটিকেও চিহ্নিত করা গেছে। ধরা পড়েছে চক্রের মাস্টারমাইন্ড বিকেএসপির সহকারী পরিচালক অলিপ কুমার বিশ্বাস, মূলহোতা ইব্রাহীম, মোস্তফা কামাল, হাফিজুর রহমান হাফিজ এবং তাজুল ইসলাম।

শফিকুল ইসলাম বলেন, গত দেড় বছরে সিআইডির টানা অভিযান এবং একের পর এক আসামি গ্রেফতারের ফলে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত এসএসসি-এইচএসসিসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের খবর পাওয়া যায়নি। সামনের দিনগুলোতেও প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষায় সিআইডির বিশেষ নজরদারী থাকবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.