বুধবার , ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত
মিন্নিকে গ্রেফতারের দাবি রিফাতের বাবার

মিন্নিকে গ্রেফতারের দাবি রিফাতের বাবার

জুলাই ১৪, ২০১৯

বরগুনা প্রতিনিধি: আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের দাবিতে সম্মেলন করেছেন নিহত রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ।

শনিবার রাত আটটার দিকে বরগুনা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ লিখিত বক্তব্যে ১০টি কারণ উল্লেখ করে জানিয়েছেন, আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি তার ছেলে রিফাত হত্যার সাথে জড়িত। তার দাবিগুলো হচ্ছে-০১. নয়নের সাথে বিয়ের ঘটনা সে ও তার পরিবার সুকৌশলে গোপন করে গেছে। ০২. বিয়ে বলবৎ থাকা অবস্থায় শরিয়া বহির্ভূতভাবে মিন্নি তার ছেলেকে বিয়ে করেছে। ০৩. রিফাতের সাথে বিয়ের পরেও মিন্নি নয়নের বাসায় আসা-যাওয়া ও যোগাযোগ রক্ষা করতো। ০৪. রিফাত হত্যার আগেরদিন ২৫ জুন মিন্নি নয়নের বাসায় গিয়েছিল। ০৫. মিন্নি প্রতিদিন একা একা কলেজে গেলেও ২৬ জুন রিফাতকে ডেকে কলেজে নিয়ে গেছে। ০৬. রিফাত তার স্ত্রী মিন্নিকে নিয়ে মোটরসাইকেলে চলে আসতে চাইলেও মিন্নি কৌশল করে কালক্ষেপণ করেছে। ০৭. রিফাতকে যখন রিশান ফরাজী দলবল নিয়ে জাপটে ধরে নিয়ে যাচ্ছিল, তখন স্বাভাবিকভাবে হাঁটতে ছিল। ০৮. রিফাতকে কোপানোর সময় মিন্নি আসামিদের জাপটে ধরলেও মিন্নিকে আসামিরা কোপায়নি। ০৯. আহত রিফাতকে হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা না করে মিন্নি তার জুতা ও ব্যাগ ওঠাতে ব্যস্ত ছিল। ১০. আহত রিফাতকে বরিশাল নেয়া হলেও মিন্নি তার সাথে যায়নি।

তিনি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন করে বলেন, পুলিশ কেন এখন পর্যন্ত মিন্নিকে আইনের আওতায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে না? তার বিশ্বাস, পুলিশ মিন্নিকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এ ন্যক্কারজনক হত্যাকাণ্ডের সত্যতা তথা প্রকৃত রহস্য বেরিয়ে আসবে।

আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নয়ন বন্ডের সাথে তার বিয়ে হয়নি। জোরপূর্বক কাবিনে স্বাক্ষর নেয়া হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে অপপ্রচারের দাবি জানিয়ে তিনি জানান, খুনিদের বাঁচানোর জন্য তাকে জড়ানো হচ্ছে। তিনিও রিফাত হত্যাকারীদের বিচার চান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.