বৃহস্পতিবার , ১৮ জুলাই ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত
রিফাত হত্যার তদন্তে অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রিফাত হত্যার তদন্তে অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

জুলাই ১৪, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যার তদন্তে অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। রিফাতের বাবা তার পুত্রবধূ মিন্নীকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই মন্তব্য করেন।

আজ রবিবার (১৪ জুলাই) সচিবালয়ে ঈদুল আজহা উপলক্ষে সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের প্রধান সাক্ষী ও নিহত রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতারের দাবিতে শনিবার সংবাদ সম্মেলন করেছেন রিফাতের বাবা আব্দুল হালিম দুলাল শরীফ। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মিন্নিকে দ্রুত গ্রেফতার করুন। তাকে গ্রেফতার করলে আমার ছেলে হত্যার মূল রহস্য বের হয়ে যাবে। আমার ছেলে হত্যার পেছনে পুত্রবধূ মিন্নির হাত রয়েছে। আসলে আমার পুত্রবধূই ভিলেন। তার সহযোগিতায় আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে।

রিফাতের বাবার এই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তদন্তের মধ্যে অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে। অ্যাডভান্স কিছু বলে লাভ নেই, তদন্ত শেষ হোক তথন আপনারা সব জানতে পারবেন।’

গত ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শত শত লোকের উপস্থিতিতে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। রিফাতকে কুপিয়ে হত্যার একটি ভিডিও ওইদিনই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে বলে গুজবটি বেশ ছড়িয়ে পড়েছে- একজন সাংবাদিক দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনি নিজেই বুঝতে পারেন এই গুজবের ভিত্তিটা কোথায়। এই ধরনের গুজব যাতে না ছড়ায় আপনাদের (সাংবাদিক) কাছে আহ্বান রইল- আপনারা বন্ধ করবেন।’

সভায় পুলিশের মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ জাবেদ পটোয়ারী, সুরক্ষা সেবা বিভাগে সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়াসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.