বুধবার , ৬ নভেম্বর ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত
বিদেশী সিরিয়াল প্রচারে সেন্সরবোর্ডের অনুমোদন নিতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

বিদেশী সিরিয়াল প্রচারে সেন্সরবোর্ডের অনুমোদন নিতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

অক্টোবর ১৭, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: তথ্যমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে বিদেশী সিরিয়াল চালাতে সেন্সরবোর্ডের অনুমোদন লাগবে। তবে এসব সিরিয়াল যারা প্রদর্শন করছেন তারা অনুমোদনের আবেদন করেছেন। ভবিষ্যতে যেন এসব সিরিয়াল সেন্সরবোর্ড হয়ে আসে সে জন্য কমিটি হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে টেলিভিশনের ক্যাবল নেটওয়ার্ককে ডিজিটাল পদ্ধতির আওতায় আনার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, দেশের কিছু চ্যানেলে বিদেশী সিরিয়াল ডাবিং করে প্রচার হচ্ছে। একটি চলচ্চিত্র বানানোর পর যেহেতু সেন্সরবোর্ড হয়ে সম্প্রচারে আসতে হয়, সেখানে বিদেশী সিরিয়াল সেন্সর ছাড়া প্রচার হওয়া সমিচীন নয়। যেহেতু এসব সিরিয়ালের কিছু দর্শক রয়েছে তাই সেগুলো চালানোর অনুমোদন দিচ্ছি।

বিদেশী ডিটিএইচের বিরুদ্ধে ১৫ ডিসেম্বরের পর অভিযান হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দেশের দুইটি কোম্পানীকে ডিটিএইচ’র (ডিরেক্ট টু হোম) লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে। তবে বিদেশী ডিটিএইচ প্রযুক্তি ব্যবহারের কোন অনুমোদন সরকার দেয়নি।

কিন্তু অনেক জায়গায়ই দেখা যাচ্ছে বিদেশী ডিটিএইচ ব্যবহার করা হচ্ছে। যেগুলো সম্পূর্ণ অবৈধ। আগামি ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে এসব অবৈধ সংযোগ সরিয়ে নিতে হবে। এরপর আমরা ব্যবস্থা নেবো। অভিযানে যাদের কাছে ডিটিএইচ পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, কোন ব্যক্তি অপরাধ সংগঠন করলে অনধিক ২ বছর কারাদন্ড, অনধিক এক লক্ষ টাকা অনুনন্য ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড। আর দ্বিতীয়বার এই অপরাধ করলে তিন বছর সস্ত্রম কারান্ড, দুই লাখ টাকা, অনূন্য ১ লাখ টাকা জরিমানার বিধান আছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে বিদেশি শিল্পী দিয়ে বিজ্ঞাপন নির্মাণের ক্ষেত্রে সরকার একটি নীতিমালা করবে এক্ষেত্রে (বিদেশি শিল্পী দিয়ে বিজ্ঞাপন তৈরি) অনেক বেশি ট্যাক্স (উচ্চ হারে কর) দিতে হবে। আমাদের দেশে যারা বিজ্ঞাপন বানায়, তারা দেখা যাচ্ছে… আমাদের দেশের ছেলেমেয়েরা অনেক স্মার্ট আমাদের অনেক মডেল আছে বিশ্বমানের। আমাদের ছেলেমেয়েরা অনেক স্মার্ট এবং তারা অনেকেই বিশ্বমানের পর্যায়ে পরে। কিন্তু দেখা যায়, আমাদের দেশের ছেলেমেয়েদের দিয়ে বিজ্ঞাপন তৈরি না করে বিদেশের দ্বিতীয় গ্রেডের শিল্পী দিয়ে বিজ্ঞাপন বানানো হচ্ছে। যেটি সমীচীন নয়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন যখন দেশে শুধুমাত্র বিটিভি একটি মাত্র চ্যানেল ছিল, তখন বিটিভিতে ব্যাপক বিজ্ঞাপন প্রচারিত হতো। তখন বিদেশি কোনো শিল্পী দিয়ে যদি বিজ্ঞাপনচিত্র তৈরি করা হতো সেটার জন্য আলাদা এক্সটা ট্যাক্স দিতে হতো। আমরা সেই নিয়মটি পুনঃপ্রবর্তন করার জন্য উদ্যাগ গ্রহণ করেছি। অবশ্যই মুক্তবাজার অর্থনীতিতে যে কেউ যে কাউকে দিয়ে, হলিউডের শিল্পী দিয়েও বানাতে পারেন, অসুবিধা নেই। সেটার জন্য অবশ্যই অনেক বেশি ট্যাক্স দিতে হবে। আমাদের শিল্পীদের বঞ্চিত করে বাইরের শিল্পী দিয়ে বানানোর একটা যৌক্তিকতাও থাকতে হবে। সুতরাং আমরা এক্ষেত্রে একটা নিয়মনীতি প্রবর্তনের উদ্যোগ নিয়েছি। ইতোমধ্যে আমরা সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়েছি। সবার সাথে আলোচনা করেই আমরা নেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.