সোমবার , ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত

অ্যাড. বাপ্পী খুনের ঘটনায় উত্তাল চট্টগ্রাম আদালত প্রাঙ্গণ, কর্মসূচী ঘোষণা

নভেম্বর ২৬, ২০১৭

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সদস্য অ্যাডভোকেট ওমর ফারুক বাপ্পী হত্যার প্রতিবাদে সর্বস্তরের আইনজীবীদের মিছিল-স্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠে পুরো চট্টগ্রাম আদালত অঙ্গন। এ সময় আদালত ছেড়ে রাজপথে এসে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন সহকর্মীরা।

আজ রোববার (২৬ নভেম্বর) বাপ্পীর হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দেড় ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করেছেন চট্টগ্রামের আইনজীবীরা। এ সময় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন আইনজীবীরা।

একইসঙ্গে আগামীকাল সোমবার (২৭ নভেম্বর) পূর্ণদিবস কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে জেলা আইনজীবী সমিতি।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হানিফ বলেন, আজ (রোববার) আমরা দেড় ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করেছি। আগামীকাল (সোমবার) পূর্ণদিবস কর্মবিরতি ঘোষণা করা হয়েছে। এসময় কোন আইনজীবী আদালতের কোন কার্যক্রমে অংশ নেবে না। বাপ্পীর হত্যাকারীরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

তিনি আরও জানান, চট্টগ্রামে বারের সকল সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট সকলে ২৭ তারিখ থেকে ৩০ তারিখ পর্যন্ত কালো ব্যাজ পরিধান করবেন এবং আগামীকাল (সোমবার) দুপুর বারটায় বিক্ষোভ সমাবেশ পালন করে নতুন কর্মসূচীর ঘোষনা করা হবে।

এদিকে, দুপুর দুইটায় চট্টগ্রাম চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভবন প্রাঙ্গণে বাপ্পী’র নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় চট্টগ্রামের সহস্রাধিক আইনজীবী অংশগ্রহণ করেন।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়ায় একটি বাসা থেকে হাত-পা বাঁধা ও মুখে টেপ লাগানো অবস্থায় এই আইনজীবীর মরদেহের উদ্ধার করা হয়। নগরীর চকবাজার থানার কে বি আমান আলী রোডে বড় মিয়া মসজিদের সামনে একটি ভবনের নিচতলার বাসা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক (মেট্রো) সন্তোষ কুমার চাকমা গনমাধ্যমকে বলেন, হাত-পা বাঁধা আছে। মুখ টেপ দিয়ে মোড়ানো। পুরুষাঙ্গ কাটা অবস্থায় পাওয়া গেছে। ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে কেউ শ্বাসরোধ করে খুন করেছে বলে ধারণা করছি।

এদিকে মরদেহ উদ্ধারের সময় ওই বাসায় আর কাউকে পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন চকবাজার থানার ওসি নূরুল হুদা।

ওসি গনমাধ্যমকে বলেন, বাড়ির মালিক জানিয়েছেন এক নারী বাসাটি ভাড়া নিয়েছিলেন। গত বৃহস্পতিবার ওই নারী বাসায় উঠেন। তার নাম-ঠিকানা বাড়ির মালিক রাখেননি। গতকাল (শনিবার) ভোরে দারোয়ান দেখতে পান, বাসার দরজা খোলা। ভেতরে গিয়ে তিনি একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেন। শরীরে তেমন আঘাতের চিহ্ন পাচ্ছি না। শ্বাসরোধ করে খুন করা হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*