শুক্রবার , ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত

অর্পিত সম্পত্তি বা শত্রু সম্পত্তি কি এবং কোনগুলো

সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

বিডিলনিউজঃ

১৯৬৫ সালে ভারতের সাথে তদানিন্তন পাকিস্তান সরকারের যুব্ধ ঘোশনা পর ৬/৯/৬৫ তারিখ সরকার জরুরি অবস্হা ঘোশনা করেন এবং পাকিস্তান প্রতিরক্ষা অধ্যাদেশ -৬৫ জারী করেন । উক্ত অধ্যাদেশের ক্ষমতাবলে পাকিস্তান থেকে ভারতে গমনকারীদের সম্পত্তি “শত্রু সম্পত্তি” হিসাবে ঘোশনা করা হয়। প্রতিরক্ষা আ্ইনের আলোকে ৩/১২/৬৫ ইং তারিখে ১১৯৯নং বিঞ্জপ্তি মূলে শত্রু সম্পত্তির ব্যবস্হপনা পূর্ব্ পাকিস্তান সরকারের ন্যস্ত করা হয়। পরবর্তীকালে পূর্ব্ পাকিস্তান শত্রু সম্পত্তি(ভূমি ও ইমারত ) ব্যবস্হপনা ও নিস্পত্তি আদেশ, ৬৬ জারীপূর্কবক শত্রু সম্পত্তির বন্দোবস্তের প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা নেয়া হয় ৬/৯/৬৫ সাল পর্যন্ত জরুরি অবস্হা ঘোশনা ও প্রত্যাহারের মধ্যবর্তী সময়ে যারা ভারত গমণ করেছেন তাহাদের সমুদয় সম্পত্তি শত্রু সম্পত্তি হিসাবে গণ্য করা হয়।১৯৬৭-১৯৬৮ সালে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক এ সম্পত্তির তালিকা প্রণয়ন করেন। বাংলাদেশ স্বাধীন হ্ওয়ার পর ১৯৭৪ সালে সরকার শত্রু সম্পত্তি জরুরি অবস্হা বহাল (সংশেোধন) ১৯৭৪ জারিপূর্বক উক্ত আইনের ৩ ধারায় শত্রু সম্পত্তিকে অর্পিত সম্পত্তি হিসাবে গণ্য করা হয়। অতএব সাবেক শত্রু সম্পত্তি বর্তমানে সরকারের ‘অর্পিত সম্পত্তি’ বলে গণ্য করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*