বুধবার , ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত

নির্বাচনী প্রচারে নামবেন জোবাইদা রহমান

নভেম্বর ১২, ২০১৮

ডেস্ক রিপোর্ট: শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার পর বাংলাদেশের রাজনীতিতে তৃতীয় নারী হিসেবে ডা. জোবাইদা রহমানের উত্থান হচ্ছে। শীর্ষ নেতৃত্বের অনুপস্থিতিতে বিএনপির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা অনেকটাই দিশাহীন। এমতাবস্থায় দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ রাখতে ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঠিক দিশা দিতে রাজনীতিতে আসছেন তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান।

দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান একাধিক মামলায় সাজা পেয়ে লন্ডনে অনেকটা নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন।

বিএনপি নেতাদের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে ভারতের বহুল প্রচারিত দৈনিক আনন্দবাজার।

নাম উল্লেখ করতে অনিচ্ছুক বিএনপির শীর্ষ নেতাদের বরাত দিয়ে আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে-জোবাইদা রহমান প্রাথমিক সদস্যপদ নিয়ে শিগগিরই বিএনপির রাজনীতি শুরু করবেন। সে ক্ষেত্রে নিজ বাড়ি সিলেট কিংবা শ্বশুরবাড়ি বগুড়া জেলা কমিটির প্রাথমিক সদস্যপদ দেয়া হবে জোবাইদাকে। তাকে আপাতত দলের ভাইস চেয়ারম্যান করার পরিকল্পনা রয়েছে।

নির্বাচনী কাজ সমন্বয়ের দায়িত্বও তার হাতে ছাড়ার কথা বিএনপি নেতৃত্ব ভাবছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। আপাতত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেকের নির্দেশানুযায়ী তিনি দল চালাবেন। সে জন্য প্রচারের মঞ্চ থেকে তার ভিডিও-বক্তৃতা প্রচারের কথা ভেবে রেখেছেন বিএনপি নেতৃত্ব।

তবে মনোনয়ন ফরমে সই করতে পারছেন না জোবাইদা রহমান। কারণ, তার পাসপোর্ট আপাতত লন্ডনে বাংলাদেশের হাইকমিশনের হাতে থাকায় ঢাকা ফিরতে সময় লাগবে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ‘কর্মীদের চাঙ্গা করে নতুন উদ্যমে ভোটের ময়দানে নামাতে এবং দলে জিয়া পরিবারের ঐতিহ্য ধরে রাখতে তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানকে নেতৃত্বে আনার বিষয়টি এক রকম চূড়ান্ত করে ফেলেছে রাজনীতিতে কোণঠাসা বিএনপি। জিয়া পরিবারের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্রের দাবি— কারাবন্দি খালেদা এ বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছেন। তারেক রহমানও সম্মত।’

জোবাইদা রহমানের ঘনিষ্ঠদের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজনীতিতে নামতে জোবাইদা রহমানও তৈরি। সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার পুত্রবধূর রাজনীতিতে অভিষেক সময়ের অপেক্ষা মাত্র।

জোবাইদার বাবা রিয়ার অ্যাডমিরাল মাহবুব আলী জিয়াউর রহমানের আমলে বাংলাদেশের নৌবাহিনীর প্রধান ছিলেন। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সরকারে তিনি যোগাযোগ ও কৃষিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এমএজি ওসমানী জোবাইদার কাকা। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সাবেক সেক্রেটারি জেনারেল আইরিন খানের চাচাতো বোন জোবাইদা চিকিৎসকদের সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় প্রথম হন। বর্তমানে লন্ডনের ইম্পেরিয়াল ইউনিভার্সিটি অব মেডিসিন থেকে রেকর্ড নম্বর ও স্বর্ণপদক নিয়ে এমএসসি করেছেন।

প্রসঙ্গত, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের রাজনীতিতে আসার গুঞ্জন নতুন নয়। বহুদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে জিয়া পরিবারের এ সদস্য বিএনপির রাজনীতির হাল ধরবেন। তবে এখনও পর্যন্ত জিয়া পরিবারের কেউ এ বিষয়ে কিছুই বলেননি। সূত্র: আনন্দবাজার

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*