রবিবার , ১৮ নভেম্বর ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত

সাত মাসেও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধনের সুপারিশ চূড়ান্ত হয়নি

মে ২৭, ২০১৮

সাত মাসেও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধনের সুপারিশ চূড়ান্ত করতে পারেনি শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মালিকপক্ষের সঙ্গে আরও আলোচনা করে সুপারিশ চূড়ান্ত করবে কমিটি। গতকাল রোববার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। গত বছরের অক্টোবরে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও শিক্ষক নিয়োগ কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) মনোনীত প্রতিনিধি রাখাসহ কয়েকটি বিধান যুক্ত করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০১০ সংশোধন করার সুপারিশ করেছিল সংসদীয় উপকমিটি। গত বছরের ডিসেম্বরে কমিটির আমন্ত্রণে বৈঠকে অংশ নিয়ে কিছু সুপারিশের বিষয়ে আপত্তি জানায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি। তাদের আপত্তির কারণে সুপারিশ চূড়ান্ত হয়নি।

সংসদীয় কমিটির সূত্র জানায়, গতকালও বৈঠকে এই আইনের সংশোধনীর সুপারিশ ও মালিকপক্ষের বক্তব্য নিয়ে আলোচনা হয়। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন প্রতিনিধিও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। কিছু বিষয়ে মালিকপক্ষ একমত হলেও মালিকপক্ষ মনে করে অর্থ কমিটি, শিক্ষক নিয়োগ কমিটিতে পরিবর্তন আনার প্রয়োজন নেই। এই অবস্থায় আরও আলোচনা করে কমিটির আগামী বৈঠকে একটি চূড়ান্ত সুপারিশ দিতে বলা হয়েছে।
কমিটির সদস্য হাছান মাহমুদ প্রথম আলোকে বলেন, বৈঠকে সব কটি প্রস্তাবিত ধারা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে সিদ্ধান্ত হয়নি। শিক্ষার্থীদের বেতন ইউজিসি থেকে নির্ধারণ করে দেওয়া, অর্থ কমিটিতে উপাচার্যকে রাখাসহ কয়েকটি বিষয়ে মালিকপক্ষের আপত্তি আছে। কমিটি বলেছে, বেতন বিশ্ববিদ্যালয় নির্ধারণ করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে অবহিত করবে, ইউজিসি প্রয়োজনে নির্দেশনা দিতে পারবেন। মালিকপক্ষ বলেছে, বেতন নির্ধারণের বিষয়টি বাজার অর্থনীতির ওপর ছেড়ে দেওয়া উচিত। তবে তিনি বলেছেন, শিক্ষা খাতকে বাজারের ওপর ছেড়ে দেওয়া যায় না। শিক্ষা খাতকে কতটুকু বাণিজ্যিক হতে দেওয়া হবে, তা রাষ্ট্রকে নির্ধারণ করতে হবে, রাষ্ট্রের হাতে নিয়ন্ত্রণ থাকতে হবে। একইভাবে ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়েও নিয়ন্ত্রণ থাকা দরকার।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধন করতে ২০১৫ সালের অক্টোবরে একটি উপকমিটি গঠন করেছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। গত বছরের ৮ অক্টোবর উপকমিটি বেশ কিছু সুপারিশ করে মূল কমিটিতে প্রতিবেদন দেয়। প্রতিবেদনে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও শিক্ষক নিয়োগ কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) মনোনীত প্রতিনিধি রাখা, শিক্ষার্থীদের ফি নির্ধারণে ইউজিসির অনুমোদন নেওয়া, প্রয়োজনে পরিচালনা পরিষদে পর্যবেক্ষক নিয়োগসহ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাময়িক অনুমতির শর্তে কিছু নতুন বিষয় যোগ করার সুপারিশ করা হয়।
কমিটি সভাপতি মো. আফছারুল আমীনের সভাপতিত্বে কমিটি সদস্য হাছান মাহমুদ, গোলাম মোস্তফা, এস এম আবুল কালাম আজাদ, মামুনুর রশিদ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, মো. ছলিম উদ্দিন তালুকদার, মো. আবদুল কুদ্দুস ও সেলিনা আক্তার বানু বৈঠকে অংশ নেন।

সূত্রঃ প্রথম আলো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*