রবিবার , ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত

আমি মেসির পক্ষে লড়াই করতে চাই: ম্যারাডোনা

জুন ২৮, ২০১৬

আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসির অবসর ঘোষণায় দেশটির ফুটবল এসোসিয়েশনের দিকে সন্দেহের তীর ছুড়লেন কিংবদন্তী ফুটবলার ডিয়াগো ম্যারাডোনা। তার মতে, নিজেদেরকে বাঁচাতে মেসিকে বলীর পাঠা বানিয়েছে এসোসিয়েশন কর্তারা। এজন্য মেসির পক্ষে কর্তাদের সঙ্গে লড়াই করতে চান বলে জানিয়েছেন ম্যারাডোনা।

১৯৯৩ সালে সর্বশেষ কোপা আমেরিকায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল আর্জেন্টিনা। তারপর চারবার কোপার ফাইনাল খেলেছে। একবার বিশ্বকাপ খেলেছে। কিন্তু কোনো শিরোপা জেতা হয়নি। ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ ও ২০১৫ সালের কোপা আমেরিকার পর টানা তৃতীয় ফাইনাল খেলল ২০১৬ সালে শতবর্ষী কোপা আমেরিকায়। কিন্তু হেরেই বিদায় নিতে হলো।

আর্জেন্টিনা ফুটবল এসোসিয়েশনের (এএফএ) পরিচালকদের কাছ থেকে চাপ ও অন্যদের সমালোচনার কথা বিবেচনা করে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন মেসি। মাত্র ২৮ বছর ৫ দিনের মাথায় আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় জানালেন তিনি।

এএফএ কর্তাদের নিয়ে ম্যারাডোনা বলেন, ‘তারা মেসিকে একা ফেলে দিয়েছে। কিন্তু আমি মেসিকে একা ছেড়ে দিতে পারি না। আমি তার সঙ্গে কথা বলতে চাই, যারা তাকে ফেলে দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে চাই। প্রথম থেকে শেষ পরিচালক পর্যন্ত, সেগুরা থেকে ভেরন পর্যন্ত যে কেউই হোক না কেন।’

ম্যারাডোনাও মেসির অনেক সমালোচনা করেছিলেন। কোপার ফাইনালে আগে তিনি বলেছিলেন, ‘যদি আমরা জয়ী হই, তাদের দেশে ফেরা উচিত না।’

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে মেসিকে নিয়ে ম্যারাডোনা বলেছিলেন, ‘মেসি অনেক বড় ব্যক্তি। কিন্তু তার কোনো ব্যক্তিত্ব নাই। নেতৃত্ব দেয়ার মতো কোনো ব্যক্তিত্ব তার মধ্যে নাই।’

কিন্তু মেসির অবসর ঘোষণার পর আর্জেন্টিনার ফুটবল কর্তাদের বেশি সমালোচনা করেছেন ম্যারাডোনা। ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলার বলেন, ‘আমরা মনে হয়, আর্জেন্টিনার ফুটবলে যে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে তা গোপন রাখতেই লিওর কথাগুলো ভালো ছিল। এএফএ তাদের বিপর্যয় ঢাকতে এক জনকে সরিয়ে দিয়েছে। আমরা আজ তাকে নিয়ে কথা বলছি, কিন্তু তাদের কথা বলছি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘সত্য বলতে আমি এখন কাউকে বিশ্বাস করি না। আমার মনে হয়, তারা তাকে বের করে দিয়েছে। নিজেদেরকে রক্ষা করতে বলেছে- সরে পড় আর আমাদেরকে রক্ষা করতে কিছু বল। আমরা বিপর্যয়ের মধ্যে ছিলাম আর তারা তাকে একা করে দিল।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*