বৃহস্পতিবার, ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি

বাবরী মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় ৩০ সেপ্টেম্বর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদ ধ্বংস মামলার চূড়ান্ত রায় দেয়া হবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর। দীর্ঘ প্রায় ২৮ বছর বাদে ওই মামলার রায় হতে চলেছে।

বুধবার বিশেষ সিবিআই (কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা) আদালতের বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার যাদব ওই মামলার রায় দেয়ার জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন। একইসঙ্গে তিনি রায় দেওয়ার দিন সমস্ত অভিযুক্তকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। খবর পার্সটুডে

বাবরী মসজিদ ধ্বংস মামলায় ৩২ জন অভিযুক্তর মধ্যে বিজেপির সিনিয়র নেতা ও তৎকালীন উপ-প্রধানমন্ত্রী লালকৃষ্ণ আডবানী, বিজেপি নেতা মুরলী মনোহর যোশি, সাবেক মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং, বিনয় কাটিয়ার ও উমা ভারতী, মোহন্ত নৃত্য গোপাল দাস, ঊমা ভারতী হলেন অন্যতম। চলতি সেপ্টেম্বরের শুরুতে, বিশেষ সিবিআই আদালত অভিযুক্তদের জবানবন্দি রেকর্ড করে মামলার সমস্ত কার্যক্রম শেষ করেছিল।

সিবিআইয়ের আইনজীবী ললিত সিং বলেন, প্রসিকিউশন ও বিবাদী উভয়পক্ষের বিতর্ক ১ সেপ্টেম্বর শেষ হয়। এরপরে বিশেষ বিচারপতি রায় লেখা শুরু করেছিলেন। সিবিআই এই মামলায় ৩৫১ জন সাক্ষী এবং ৬০০ টি তথ্যপ্রমাণ আদালতে পেশ করে। অবশেষে ২৮ বছর পরে বাবরী মসজিদ ধ্বংস মামলায় আদালতের রায় আসছে।

১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর প্রকাশ্য দিবালোকে ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যার কয়েকশো বছরের পুরোনো বাবরী মসজিদ ‘করসেবক’ নামধারী উগ্রহিন্দুত্ববাদী ধর্মান্ধরা ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল। তাদের দাবি, ওই স্থানটি ভগবান রামের জন্মস্থান। সম্প্রতি সেই জমিতেই রাম মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। এরআগে সুপ্রিমকোর্ট সেখানে রাম মন্দির নির্মাণের অনুমতি দিয়েছিল।

এ প্রসঙ্গে ‘সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ কামরুজ্জামান আজ রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদকে যারা প্রকাশ্য দিবালোকে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল, শহীদ করে দিয়েছিল, দীর্ঘ ২৮ বছর পরে আদালত ওই বিষয়ে রায় প্রদান করবেন। আমরা আশা করছি যে মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতার উপরে আঘাত হেনে, মুসলিমদের ধর্মীয় স্থান পবিত্র মসজিদ সেদিন যারা গুঁড়িয়ে দিয়েছিল, তাদেরকে অপরাধী হিসেবে আদালত সাব্যস্ত করবেন এবং তাদেরকে সাজা দেবেন আমরা সেই আশা করছি। আদালতের প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা আছে, আদালত মুসলিমদের সেই আস্থাকে সম্মান জানাবেন বলেও আমরা আশা করছি।’

Responses

লেখক পরিচিতি